কাব্য সমালোচনা : সুদীপ পাল

‘স্থিতধী নিঃশব্দেরা বলে দেয় সহস্র কথা
সহস্র প্রশ্নের সহজ উত্তরদাতা’
কবি সংযুক্তা পান তাঁর প্রথম কাব্যগ্রন্থ ‘অপরাজিতা’-তে এভাবেই ব্যাখা করেছেন নিঃশব্দকে। কবি তাঁর কাব্যগ্রন্থের ভূমিকায় লিখেছেন – ‘কাব্য কিনা জানিনা। তবে প্রকৃতি সমাজ বা সম্পর্কের স্পর্শে মনোভূমিতে স্পন্দন লাগলে চেনা-অচেনা সাঁঝবাতিরা নিয়ম করে আলো জ্বালিয়ে যায় তখন। সেই আলোর অনুসরণ নানা স্বাদের অধরাকে নীরবতার অরণ্যে লুকানো গোপন আর্তিগুলির সন্ধান দেয়। সেই নিরবতার প্রকাশ অপরাজিতা।’
কবির ‘প্রান্তিক’ কবিতায় উঠে এসেছে প্রান্তজনের কথা। কবি লিখেছেন, ‘রুক্ষমাটি, তীক্ষ্ণতাপ /নিত্যসঙ্গী অনাহার আর খাদ্যাভাব।’
‘লাশ’ কবিতায় কবি লিখেছেন, ‘ব্যস্ততম পৃথিবীর প্রত্যেকটি সম্পর্কের মাঝে একটা না একটা লাশ আছে।’
‘পৃথিবীর আদিম পিতাকে’ কবি প্রশ্ন করেছেন ‘ভালোবাসা যদি দিলে/ দ্বেষ দিলে কেন এত মিছে?’
পেশায় শিক্ষকা কবি সংযুক্তা পান-এর জন্ম শেওড়াফুলিতে। হেরে না যাওয়ার যুদ্ধে নতুনের সাথে আলাপন কবির প্রথম কাব্যগ্রন্থ ‘অপরাজিতা’। কাব্যগ্রন্থটি বসিরহাটের কর্পোরেট পাবলিসিটি থেকে প্রকাশিত হয়েছে।

error: Alert: Content is protected !!