টাকার বিনিময়ে পাশ করানোর টোপ

একতারা বাংলা, নিউজ ডেস্ক:

দশ হাজার টাকার বিনিময়ে ছাত্রীকে পাশ করিয়ে দেওয়ার টোপ দেওয়ার অভিযোগে শিলিগুড়ি কলেজের রাষ্ট্রবিজ্ঞানের বিভাগীয় প্রধান অমিতাভ কাঞ্জিলালের বিরুদ্ধে। অভিযুক্ত অধ্যাপককে শিলিগুড়ি কলেজের সব পদ থেকে সরিয়ে দেওয়া হল।

এমন কি, কলেজের ওয়েবসাইট থেকে বাদ রাখা হল তাঁর নাম ও টেলিফোন নম্বর। সরানো হল রাষ্ট্রবিজ্ঞানের বিভাগীয় প্রধানের পদ থেকেও।পরিচালন সমিতির সভাপতি জয়ন্ত কর জানিয়েছেন, ওই অধ্যাপকের আগামী একমাস কলেজে আসা বন্ধ করে দেওয়া হল।

তদন্ত কমিটি এবং পুলিশের তদন্ত রিপোর্ট অনুযায়ী পরবর্তীতে যদি ওই অধ্যাপক নিজেকে নির্দোষ বলে প্রমাণিত করতে পারেন তাহলে ফের তাঁকে সমস্ত দায়িত্ব ফিরিয়ে দেওয়া হবে বলে বৈঠকে ঠিক হয়েছে।

অমিতাভ কাঞ্জিলালের বিরুদ্ধে তদন্ত কমিটি গঠন করেছে কলেজ কর্তৃপক্ষ। কলেজের অধ্যাপিকা ঝিনুক দাশগুপ্ত সহ কমিটিতে রয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয় নির্বাচিত প্রতিনিধি শিলিগুড়ি প্রাথমিক শিক্ষা সংসদের চেয়ারম্যান ড: সুপ্রকাশ রায় এবং ড: জিনিয়া মিত্র প্রমুখরা।

তৃণমূল ছাত্র পরিষদ উত্তরবঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনের সামনে অমিতাভ কাঞ্জিলালকে গ্রেপ্তারের দাবিতে বিক্ষোভ দেখিয়েছে। পরে ওই অধ্যাপকের কুশপুতুলও দাহ করে তারা। অভিযুক্ত অধ্যাপকের শাস্তি দাবি করে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের কাছে স্মারকলিপি জমা দিয়েছে তৃণমূল সমর্থিত উত্তরবঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয় অস্থায়ী শিক্ষা কর্মী অ্যাসোসিয়েশন।

error: Content is protected !!