রাত পোহালেই বিশ্বকর্মার আগমন , হাসি নেই মৃৎশিল্পীদের মুখে

একতারা বাংলা, নিউজ ডেস্ক:

রাত পোহালেই শিল্পের দেবতা বিশ্বকর্মার আগমন ঘটবে। কিন্তু এই বছর করোনাভাইরাসের আবহে মৃৎশিল্পীদের সেভাবে প্রতিমা বিক্রি হচ্ছেনা বললেই চলে। ফলত মুখে হাসি নেই তাঁদের।

অন্যদিকে পুজো উদ্যোক্তারা বলছেন, যেহেতু করোনা চলছে, তাই অন্যান্য বছরের মতো এবছর বড় আয়োজনে কোন পুজো হচ্ছে না। তাই ছোট প্রতিমা এনে নিয়ম রক্ষা করে পুজো করা হবে বলে অনেক উদ্যোক্তা জানিয়েছেন।

মৃৎশিল্পীরা বলছেন, লকডাউনে বড় প্রতিমার অর্ডার হয়নি। তবে প্রতিমা তাঁরা তৈরি করেছেন। পুজো উদ্যোক্তারা যদি প্রতিমা কেনেন তাহলে হয়তো খরচের পয়সা উঠবে বলে তাঁদের আশা।

করোনা ছাড়াও এক সময় আসানসোল শিল্পাঞ্চলে বিশ্বকর্মার পুজো হত ধুমধাম করে। হিন্দুস্তান কেবল্স, বার্ন স্ট্যান্ডার্ড, পিলকিংটন কাচ কারখানা, সেন র্যা লে, জেকে নগর অ্যালুমিনিয়াম কারখানায় পুজো দেখতে রীতিমতো ভিড় জমে যেত। সে সব এখন ইতিহাস মনে হয় এখানকার বাসিন্দাদের কাছে। একের পর এক বড় কারখানা বন্ধ হয়েছে। ছোট শিল্পগুলিও ধুঁকছে।

মৃৎশিল্পীরা বলছেন, মঙ্গলবার সব প্রতিমা বিক্রি না হওয়ায় বুধবারও বিভিন্ন জায়গায় পসরা সাজিয়ে বসেছিলেন তাঁরা। কিন্তু এদিনও ব্যবসা তেমন হল না। অনেক প্রতিমা ঘরে ফেরত নিয়ে যেতে হবে বলে আক্ষেপ তাঁদের।

error: Content is protected !!