মারা গেল সেই পুত্রসন্তান

একতারা বাংলা, নিউজ ডেস্ক:

ছেলে হবে কিনা জানতে অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রীর পেট হাঁসুয়া দিয়ে কেটেছিল স্বামী। অনেক চেষ্টা করেও জখম মহিলার গর্ভে থাকা সন্তানকে বাঁচানো গেল না।উত্তরপ্রদেশের বরেলীর ঘটনায় স্তব্ধ সকলেই।

বরেলীর সিভিল লাইন পুলিশ স্টেশন এলাকার নেকপুরে স্ত্রী ও পাঁচ মেয়েকে নিয়ে থাকে পান্নালাল। গত শনিবার সন্ধ্যায় স্ত্রীর পেট কেটে পান্নালাল দেখার চেষ্টা করে যে সন্তান আসতে চলেছে তা ছেলে না মেয়ে।

এই ঘটনায় গুরুতর জখম হন পান্নালালের স্ত্রী। স্থানীয় বাসিন্দারা এই ঘটনা দেখে শিউরে ওঠেন। সঙ্গে সঙ্গে তাঁরা যুবতীকে নিয়ে যান স্থানীয় হাসপাতালে। সেখান থেকে তাঁকে বরেলী হাসপাতালে পাঠানো হয়। শেষরক্ষা হল না। সন্তান মারা গেল।

ছেলের আশায় পরপর পাঁচটি মেয়ে হয়েছিল পান্নালালের। তাই ষষ্ঠবার স্ত্রী অন্তঃস্বত্ত্বা হওয়ার পরে গর্ভস্থ সন্তান ছেলে না মেয়ে, তা দেখার জন্য অপেক্ষা করতে পারেনি সে। ধারালো অস্ত্র দিয়ে স্ত্রীর পেট কেটে দেখার চেষ্টা করে গর্ভস্থ সন্তান ছেলে না মেয়ে। যুবতীর পরিবারের তরফেই থানায় পান্নালালের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করা হয়। পাশবিক ঘটনার পরে গ্রেফতার করা হয়েছে পান্নালালকে।

error: Content is protected !!