খাগড়াগড় বিস্ফোরণ: বোমারু মিজানের ২৯ বছরের কারাদণ্ড

একতারা বাংলা, নিউজ ডেস্ক:

পশ্চিমবঙ্গের আলোচিত খাগড়াগড় বিস্ফোরণ কাণ্ডের প্রধান অভিযুক্ত শেখ কাউসার ২৯ বছরের কারদান্ডের দণ্ড দিলেন ভারতের জাতীয় তদন্তকারি সংস্থা এনআইয়ের বিশেষ আদালত। বুধবার (১০ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে কলকাতার ব্যাঙ্কশাল কোর্টের বিশেষ আদালতের বিচারক এই রায় ঘোষণা করেন। এ নিয়ে ওই ঘটনায় ৩১ জনের বিরুদ্ধে সাজা ঘোষণা করলেন আদালত।

২০১৪ সালে ২ অক্টোবর বর্ধমান জেলার সদর খাগড়াগড়ের একটি দোতলাবাড়িতে বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটলে সেখানে দুজনের মৃত্যু হয় এবং আহত হন বেশ কয়েজন। গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণে এই ঘটনা ঘটেছে বলে স্থানীয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে দাবি করা হলেও পরে জাতীয় তদন্তকারি সংস্থা এনআইএর তদন্তে বেড়িয়ে আসে প্রকৃত ঘটনা।

বাংলাদেশ সরকারের বিব্রত করতে, বর্ধমানে বসেই নীল নকশা কষছিল বাংলাদেশ থেকে বিতারিত জেএমবির একদল জঙ্গী। তারা পশ্চিমবঙ্গে শাখা বিস্তার করে সেখানেও নাশকতার পরিকল্পনা নিয়েছে। সেই জন্যই সেখানে তৈরি করা হচ্ছিল বিস্ফোরক। ২০১৫ সালে এনআইএর দেওয়া প্রথম চার্জশিটে এমনই তথ্য দেওয়া হয়।

শুধু তাই নয়, এনআইএর তদন্তে উঠে আসে শেখ কাউসার ওরফে বোমারু মিজানের নাম শুধু তাই নয় চার্যশিটে বাংলাদেশি ৬ জেএমবির সদস্যকে অভিযুক্ত করা হয়। এদের মধ্যে গ্রেফতার করা হয় ৪ জনকে। ২০১৮ সালে গয়া থেকে গ্রেফতার করা হয় মুল অভিযুক্ত শেখ কাউসারকে। কলকাতার ব্যাঙ্কশাল কোর্টে দীর্ঘ শুনানী শেষে ২০১৯ সালে ২৮ আগষ্ট ৩৮ জন অভিযুক্তের মধ্যে ৩১ জনকে দোষীসাবস্ত করেন বিচারক এবং বিভিন্ন মেয়াদে ১০ বছরে সাজা দেয়। তবে কাউসারের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহীতাসহ ১৪টি ধারায় অভিযোগ করা হয়েছিল। সে সব ধারার বিচার শেষে বুধবারই আদালত ২৯ বছরের সাজা ঘোষণা করলেন।

error: Content is protected !!