নজিরবিহীন দৃষ্টান্ত, বাংলাদেশে সংবাদ পাঠে প্রথম ট্রান্সজেন্ডার নারী

একতারা বাংলা, নিউজ ডেস্ক :

কখনও কখনও এমন কিছু ঘটনা বা কাজ থাকে যা সবাইকে জানানোর তাগিদ অনুভুত হয়। বাংলাদেশের স্বাধীনতার মাস মার্চ ও সুবর্ণ জয়ন্তীর বছরে বৈশাখী টেলিভিশনের তেমন একটি ব্যতিক্রমী উদ্যোগ নিয়েছে। টেলিভিশনে প্রথমবারের মতো সংবাদ পাঠ করলেন ট্রান্সজেন্ডার বা রূপান্তরকামী নারী তাসনুভা আনান।

বৈশাখী টিভির উপ ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান সম্পাদক টিপু আলম মিলন সে দেশের গণমাধ্যম কে বলছেন, ‘আমরা জানি, আমাদের প্রিয় মাতৃভূমি বাংলাদেশের স্বাধীনতার মূলমন্ত্র ছিল দেশের মানুষের মুক্তি, সবার জন্য বাসযোগ্য, বৈষম্যহীন একটি সমাজ গড়ে তোলা। স্বাধীনতার ৫০ বছরে গর্ব করার মতো অনেক অর্জন থাকলেও বৈষম্যহীন ও সবার জন্য নিরাপদ জীবন নিশ্চিত করা সম্ভব হয়নি। এই ব্যর্থতার কারণে সবচে বড় অবহেলিত জনগোষ্ঠীগুলোর মধ্যে ট্রান্সজেন্ডাররা অন্যতম।।

তাসনুভা আনান বলেন, ‘স্বাধীনতার ৫০ বছরে বাংলাদেশের জেন্ডার ডিসক্রিমিনেশন বা চিরাচরিত প্রথা ভাঙতে পারছি এটা আমার জন্য একটা বড় প্রাপ্তি। আমি বিশ্বাস করি, চাইলে যে কেউ নিজের যোগ্যতাবলে কাঙ্ক্ষিত লক্ষ্যে পৌঁছে যেতে পারে। বৈশাখী টেলিভিশনের এই উদ্যোগ দেশের অন্যান্য সেক্টরে দারুণভাবে ভাবিত করবে, বৈশাখী টেলিভিশন দেশের মানুষকে চিন্তার জায়গা করে। সবাই ট্রান্সজেন্ডারদের নিয়ে ভাববে। আর আমার অনুভূতির কথা যদি বলেন, এটা আমি ভাষায় প্রকাশ করতে পারছি না। বৈশাখী টেলিভিশনের প্রতি আমি খুব গভীরভাবে কৃতজ্ঞ।’

আগামী ৮ মার্চ থেকে তাসনুভা আনান নিয়মিত সংবাদ পাঠ করবেন বলেও জানালেন বৈশাখী টেলিভিশন সূত্রে নিশ্চিত করা হয়েছে।