বাংলা নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য! সাসপেন্ড করা হল কঙ্গনার ট্যুইটার অ্যাকাউন্ট

একতারা বাংলা, নিউজ ডেস্ক :

বিধানসভা নির্বাচনের এই রায় দেখে ট্যুইটারে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে আক্রমণ করে একের পর এক বিতর্কিত পোস্ট করেছেন কঙ্গনা । ট্যুইটে তিনি লেখেন, ‘‘বাংলাদেশী আর রোহিঙ্গারা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সবচেয়ে বড় শক্তি । যা ট্রেন্ড দেখছি, সেখানে হিন্দুরা আর সংখ্যাগরিষ্ঠতায় নেই । তথ্য অনুযায়ী, বাংলার মুসলিমরা সবচেয়ে গরীব আর বঞ্চিত । ভাল, আর একটা কাশ্মীর হতে চলেছে ।’’

এখানেই শেষ নয়, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে শুভেচ্ছা জানাতে গিয়েও তাঁক বেনজির কটাক্ষ করেছিলেন কঙ্গনা । লিখেছিলেন, ‘‘২০১৯-এ লোকসভা ভোটে ধাক্কা খাওয়ার পর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় একজন বাঘিনীর মতই লড়াই করেছেন এই বিধানসভা নির্বাচনে। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর হেলিকপ্টার নামতে দেননি। সিএএ, এনআরসিকে আটকেছেন।

মোদিকে খেলায় আহ্বান করেছেন। খোলাখুলি শরণার্থীদের আশ্রয় দিয়েছেন, তাঁদের ভোটার কার্ড দিয়েছেন। গণতন্ত্র এখানে রসিকতা। তবু আমি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে স্যালুট জানাচ্ছি। কারণ যদি ভিলেন হতেই হয় তাহলে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মতো হন। রাবণের মত লড়াই করুন। রাহুল গাঁন্ধির মতো গোগো না। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের জয়ী হওয়াই উচিত।’’

এরপর আরামবাগে বিজেপির পার্টি অফিসে আগুন লাগানোর খবরের রিট্যুইট করে কঙ্গনা লেখেন, ‘‘আগামীদিনে বাংলায় রক্তস্নান হবে। সরকার হেরে যাওয়ার ভয়ে রক্ত পিপাসু হয়ে উঠবে।’’ এই পোস্টগুলি মাইক্রো ব্লগিং সাইট ট্যুইটারের নীতি লঙ্ঘন করেছিল বলে জানানো হয়েছে ট্যুইটার সংস্থার তরফে ।