চিংড়ি মাছের মালাইকারি : সুতপা মুখার্জ্জী

উপকরনঃ-

১. চিংড়ি মাছ – ৩০০ গ্রাম । (বাছা ও ধোয়া)
২. পিঁয়াজ কু্ঁচি – ১ টি ।(মাঝারি মাপের )
৩. রসুন বাঁটা – ১ চা চামচ।
৪. আদা বাঁটা – ১ চা চামচ।
৫. পোস্ত বাঁটা- ১ চা চামচ ।
৬. ধনে গুঁড়ো – ½ চা চামচ ।
৭.জিরে গুঁড়ো- ½চা চামচ ।
৮.হলুদ গুঁড়ো – ½চা চামচ ।
৯.সর্ষের তেল – ২ টেবিল চামচ।
১০.কাঁচা লঙ্কা— ২ টো ।
১১. নুন ও চিনি – স্বাদ অনুযায়ী ।
১২. ঘি – ½চা চামচ ।
১৩. গরম মশলা – ½ চা চামচ ।
১৪. নারকোলের দুধ – 1½কাপ ।

প্রণালী:-

প্রথমে উনুনে কড়াই চাপিয়ে তাতে তেল দিয়ে তেল গরম হতে দিতে হবে । তারপর চিংড়ি মাছ গুলো নুন ও হলুদ মাখিয়ে হালকা করে ভেজে নিয়ে তুলে রাখতে হবে একটি পাত্রে । এবার কড়াই এর বাকি তেলে পিঁয়াজ কুঁচি দিয়ে ভেজে নিতে হবে ।

পিঁয়াজ সোনালী হয়ে এলে তাতে একে একে রসুন বাঁটা, আদা বাঁটা, জিরে গুঁড়ো ,ধনে গুঁড়ো ,হলুদগুঁড়ো ও কাঁচা লঙ্কা দিয়ে উনুন এর আঁচ কমিয়ে ভাল করে নাড়াচাড়া করে নিতে হবে ।

এবার স্বাদ অনুযায়ী নুন, চিনি ও পোস্ত বাঁটা দিয়ে মশলা টা ভাল করে কষিয়ে নিতে হবে।এবার নারকোলের দুধ দিয়ে ২মিনিট ঢাকা দিয়ে মশলা টা ফুটতে দিতে হবে।

২মিনিট হয়ে যাওয়ার পর মশলা টা ফুটে গেলে ঢাকা খুলে তাতে চিংড়ি মাছ ভাজা গুলো দিয়ে,ঢাকা দিয়ে, ফুটতে দিতে হবে আরো ৫ মিনিট ।

মনে রাখতে হবে পুরো রান্নাটাই হবে কম আঁচে , জল ছাড়া । এরপর ৫ মিনিট পর ঢাকা খুলে, ঘি ও গরম মশলা দিয়ে নামিয়া নিয়ে ,পরিবেশন করুন চিংড়ি মাছের মালাইকারি।

[ রান্না টা করার সময়, নারকোলের দুধ না থাকলে , গরুর দুধ, এই রান্না তে দেওয়া যেতে পারে। আর যদি নিতান্তই গরুর দুধ না পাওয়া যায় , তাহলে গুঁড়ো দুধ হাল্কা গরম জলে গুলে এই রান্নাটায় ব্যবহার করা যায় । যে কোন দুধ এর ব্যবহারেই এই রান্নার স্বাদ হয়, অসাধারন ।]

error: Alert: Content is protected !!